NTRCA Preparation

প্রতিশব্দ কি? প্রতিশব্দ কাকে বলে? অথবা প্রতিশব্দ মানে কি?

প্রতিশব্দ কি?প্রতিশব্দ কাকে বলে?অথবা প্রতিশব্দ মানে কি?

ADVERTISEMENT

যেসব শব্দের অর্থ অভিন্ন বা প্রায় সমান, সেসব শব্দকে প্রতিশব্দ বলে।

যেমন ‘ঘর’ শব্দের প্রতিশব্দ ‘গৃহ’, ‘নির্বাচন’ শব্দের প্রতিশব্দ ‘বাছাই’, ‘কথা’ শব্দের প্রতিশব্দ ‘বাণী’ ইত্যাদি। বাক্যের প্রকাশকে সাবলীল ও বাক্যের অর্থকে সুস্পষ্ট করতে যথাযথ প্রতিশব্দ খুঁজে নিতে হয়। 

প্রতিশব্দ সব সময়ে প্রতিস্থাপনযোগ্য না-ও হতে পারে – প্রসঙ্গের উপরে প্রতিশব্দের ব্যবহার নির্ভর করে। যেমন ‘গৃহহীন’-কে ‘ভবনহীন’ বলা যায় না, ‘নির্বাচন কমিশন’-কে ‘বাছাই কমিশন’ বলা যায় না, কিংবা বক্তার মুখে ‘কথার খই ফোটে’ বলা গেলেও ‘বাণীর

খই ফোটে’ বলা যায় না।

নিচে কিছু শব্দের প্রতিশব্দ দেওয়া হলো।

অকস্মাৎ : আচমকা, হঠাৎ, সহসা, অতর্কিত, দৈবাৎ

অকাল : অসময়, অবেলা, দুর্দিন, অশুভ সময়, কুক্ষণ, দুঃসময়।

অক্ষয়: চিরন্তন, ক্ষয়হীন, অশেষ, অনন্ত, অনিঃশেষ, অন্তহীন, অন্তবিহীন, অবিনাশী।

অতিথি : মেহমান, অভ্যাগত, আগন্তুক, নিমন্ত্রিত, আমন্ত্রিত, কুটুম। অদ্ভুত : উদ্ভট, আজব আজগুবি, তাজ্জব, বিস্ময়কর, আশ্চর্য, অভিনব, অস্বাভাবিক।

অনেক : বেশি, বহু, প্রচুর প্রভূত, পর্যাপ্ত, অধিক, অত্যন্ত, অতিশয়, অতিরিক্ত, অত্যধিক, বাড়তি, দেদার।

অন্ধকার : আঁধার, তিমির, তমসা।

অবকাশ : সময় ফুরসত, অবসর, ছুটি, সুযোগ। : অনটন, দারিদ্র্য, দৈন্য, দীনতা, দুরবস্থা, গরিবি, অসচ্ছলতা, অপ্রাচুর্য।

অভাব: আলসে, নিষ্ক্রিয়, নিষ্কর্মা, অকর্মা, শ্রমকাতর, অকেজো, অকর্মণ্য, শ্রমবিমুখ, নিরুদ্যম, জড়প্রকৃতি।

অশ্ব : ঘোড়া, ঘোটক, হয়, তুরগ, তুরঙ্গম।

আইন :বিধান, কানুন, ধারা, নিয়ম।

আকাশ :: গগন, আসমান, খ, অম্বর, ব্যোম, নভ, অন্তরীক্ষ দ্যুলোক, নীলিমা। 

আগুন : অগ্নি, অনল, বহ্নি, পাবক, হুতাশন।

আনন্দ: খুশি, আমোদ, মজা, পুলক, হর্ষ, আহ্লাদ, স্ফূর্তি, সন্তোষ, পরিতোষ, প্রমোদ, উল্লাস, উচ্ছ্বাস।

ইচ্ছা : আকাঙ্ক্ষা, আশা, অভিলাষ, প্রার্থনা, চাওয়া, স্পৃহা, অভিপ্রায়, সাধ, অভিরুচি, প্রবৃত্তি, মনোরথ, ঈপ্সা, অভীপ্সা, বাসনা, কামনা, বাঞ্ছা।

নদী:নদ, গাঙ, স্রোতস্বিনী, তটিনী, প্রবাহিনী, নির্ঝরিণী, কল্লোলিনী।

নারী: মানবী, মহিলা, স্ত্রী, স্ত্রীলোক, মেয়ে, ললনা, অঙ্গনা,

বনিতা।

পাখি : পক্ষী, বিহগ, বিহঙ্গ, খগ, খেচর, চিড়িয়া, পাখপাখালি।

পাথর : পাষাণ, প্রদ্ভৱ, শিলা, উপল, অশ্ম, কঙ্কর।

পানি: জল, সলিল, নীর, পক্ষ, বারি, অপ, উদক, জীবন, অম্বু।

তনয়, : ছেলে, আত্মজ, নন্দন, দুলাল, সুত, খোকা, কুমার। 

পৃথিবী : জগৎ: ভুবন, সংসার, বিশ্ব, ধরা, ধরণী, ধরিত্রী, বসুমতী, বসুন্ধরা, পৃথ্বী, দুনিয়া, ভূ, ভূমণ্ডল, মর্ত্য, বসুধা, অবনী, মহী, মেদিনী, ক্ষিতি। 

বন: অরণ্য, জঙ্গল, কানন, বনানী, বনবাদাড়, কুঞ্জ, কান্তার, বিপিন, অটবী।

বাতাস বায়ু, হাওয়া, পবন, সমীর, সমীরণ, অনিল, মরুৎ, প্রভঞ্জন।

বিদ্যুৎ: তড়িৎ, বিজলি, বিজুরি, অশনি, ক্ষণপ্রভা, সৌদামিনী, দামিনী, চপলা ।

 বিয়ে: পরিণয়, পাণিগ্রহণ, উদ্ধাহ, নিকা, শাদি।

বৃক্ষঃগাছ: তরু, দ্রম, শাখী, পাদপ, মহীরুহ, উদ্ভিদ। 

ব্যবধান: ফাঁক, ছিদ্র, অন্তর, তফাত, ভেদ, পার্থক্য।

মা: জননী, মাতা, মাতৃ, মাতৃকা, আম্মা, গর্ভধারিণী, জন্মদাত্রী, প্রসূতি।

মৃত্যু: মরণ, ইন্তেকাল, বিনাশ, নিপাত, পরলোকগমন, লোকান্তর, চিরবিদায় দেহত্যাগ, শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ, ইহলীলা-সংবরণ, পঞ্চত্বপ্রাপ্তি।

পানি: জলদ, জলধর, নীরদ, বারিদ, ঘন, জীমূত, অভ্র, অম্বুবাহ।

যুদ্ধ: লড়াই, সংঘর্ষ, সংগ্রাম, সমর, যুদ্ধবিগ্রহ, রণ, সংঘাত।

রাজা: নৃপতি, নৃপ, সম্রাট, বাদশাহ্, নৃপেন্দ্র, নরপতি, ভূপতি, ভূপাল।

সাপ :সৰ্প, অহি, ফণী, নাগ, ভুজগ, ভুজঙ্গ, আশীবিষ, উরগ, বিষধর, পল্লগ।

সূর্য: রবি, তপন, ভানু, ভাস্কর, আদিত্য, সবিতা, প্রভাকর, দিবাকর, বিভাবসু, দিনমণি, মার্তণ্ড, অংশুমালী, অরুণ।

গৃহিণী: পত্নী, ভার্যা, সহধর্মিণী, অর্ধাঙ্গিনী, দারা, জায়া, বধূ, বউ, বিবি, বেগম, ।

হাত :হন্ত, কর, বাহু, ভুজ, পাণি।

হাতি :গজ, হন্তী, করী, দ্বিপ, বারণ, মাতঙ্গ, কুঞ্জর, দন্তী, দ্বিরদ, পিল।

হীন : নীচ, অধম, নিন্দনীয়, অবনত, গরিব, অক্ষম, শূন্য, ক্ষীণ।

উত্তম: শ্রেষ্ঠ, সর্বশ্রেষ্ঠ ভালো, উৎকৃষ্ট, প্রকৃষ্ট, সেরা, অতুলনীয়, প্রধান।

একতা: ঐক্য, মিলন, একত্ব, অভেদ, অভিন্নতা।

কঠিন:শক্ত, দৃঢ়, কঠোর, কড়া, জটিল, রুক্ষ। 

কথা: উক্তি, বাক্য, বচন, কথন, বাণী, ভাষণ, বিবৃতি, জবান, বুলি, বোল, বাক।

কন্যাঃ মেয়ে, দুহিতা, আত্মজা, নন্দিনী, তনয়া, পুত্রী, ঝি।

কপাল: ললাট, বরাত, ভাল, অদৃষ্ট, ভাগ্য, নিয়তি, নসিব।

কবুতর: কপোত, পায়রা, পারাবত, নোটন।

কষ্ট: যন্ত্রণা, দুঃখ, ক্লেশ, আয়াস, পরিশ্রম, মেহনত।

কান: কর্ণ, শ্রবণ, শ্রুতি, শ্রবণেন্দ্রিয়।

কান্না: ক্রন্দন, কাঁদা, রোদন, অশ্রুপাত।

কিরণ: রশ্মি, শিখা, আলোকচ্ছটা, কর, প্রভা, দীপ্তি, জ্যোতি, অংশু।

কুল কূল : তীর, ভট, বেলাভূমি, সৈকত, ধার, বালুকাবেলা, কিনারা, পুলিন, পাড়।

খবর: সংবাদ, বার্তা, তথ্য, সমাচার, বিবরণ, সন্ধান, বৃত্তান্ত, খোঁজখবর।

খাদ্য: খাবার খানা, ভোজ্য, ভক্ষ্য, আহার্য, অন্ন, রসদ।

খারাপ: মন্দ, নিকৃষ্ট, দুষ্ট, নষ্ট, অভদ্র, অশ্লীল।

খোঁজ: সন্ধান, অন্বেষণ, অনুসন্ধান, খোঁজা, তালাশ।

গভীর: অগাধ, অতল গহন, প্রগাঢ়, নিবিড়।

গৃহ: বাড়ি, ঘর, আলয়, ভবন, নিলয়, নিকেতন, সদন, আগার, আবাস, বাটি, কুটির।

চাঁদ: চন্দ্র, শশী, শশধর, শশাঙ্ক, বিধু, সোম, নিশাকর, সুধাংশু, সুধাকর, ইন্দু, সিতাংশু, হিমাংশু,

মৃগাঙ্ক ।

চুল : কেশ, অলক, চিকুর, কুঝল, কবরী।

চোখ: চক্ষু, নয়ন, আঁখি, অক্ষি, লোচন। 

নেত্র, : উৎপত্তি, উদ্ভব, সৃষ্টি, ভূমিষ্ঠ, জনম, আবির্ভাব।

ঝাড়: ঝঞ্ঝা, তুফান, সাইক্লোন, ঝটিকা, টর্নেডো, ঘূর্ণিঝড়।

ঝোঁক : টান, প্রবণতা, আকর্ষণ।

ঠীক : যথাযথ, সত্য, সঠিক, যথার্থ, উপযুক্ত, নির্ভুল, ন্যায্য ভালো। 1

ঢেউ: বিদ্রুপ, শ্লেষ, মশকরা, উপহাস, রসিকতা। : তরঙ্গ, কল্লোল, ঊর্মি, বীচি, হিল্লোল, লহরী।

তৃষ্ণ: পিপাসা, তিয়াসা, তেষ্টা, আকাঙ্ক্ষা।

নিচে কিছু নমুনা প্রশ্ন দেয়া হল-

সঠিক উত্তরে টিক চিহ্ন  দাও।

১ প্রতিশব্দ কী?

ক. অভিন্ন শব্দ 

খ. ভিন্ন শব্দ

গ. ভিন্নার্থক শব্দ

ঘ. বিপরীত শব্দ

২. ‘আইন’ শব্দের প্রতিশব্দ নয় কোনটি? 

ক. কানুন 

খ. নিয়ম 

গ. বিধান 

ঘ. শশী

৩. একটি শব্দের অনুরূপ, অবিকল ও নিকটবর্তী অর্থ প্রকাশকে কী বলে? 

ক. প্রতিশব্দ 

খ. ভিন্নার্থক শব্দ 

গ. বিপরীত শব্দ 

ঘ. সমোচ্চারিত শব্দ

৪. নিচের কোনটি ‘গৃহ’ শব্দের প্রতিশব্দ নয়? 

ক. নয়ন

 খ. আলয় 

গ. ঘর 

ঘ. বাড়ি

৫. ‘পৃথিবী’ শব্দের সঠিক প্রতিশব্দ কোনটি? 

ক. অবনী 

খ. জননী 

গ. নীর 

ঘ. জীবন

৬. আদিত্য, সবিতা, রবি, দিবাকর ইত্যাদি কোন শব্দের প্রতিশব্দ? 

ক. অর্ণব 

খ. সূর্য 

গ. নৃপ

ঘ. গিরি

ADVERTISEMENT

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button