Health Tips

ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয় উপায় অনুচ্ছেদ

আমরা সবাই জানি যে, ডেঙ্গু জ্বর মূলত মশার মাধ্যমে হয়ে থাকে। আর সে কারণে এই রোগ কে বলা হয়ে থাকে, মশা বাহিত রোগ। যদিও বা আমাদের বিভিন্ন সময়ে জ্বর হয়ে থাকে। কিন্তু আপনি যখন ডেঙ্গু জ্বরের মধ্যে আক্রান্ত হবেন। তখন এই জ্বর অন্যান্য জ্বরের থেকে অনেক ভিন্ন হবে। তবে আমরা অনেকেই মনে করি যে, ডেঙ্গু জ্বর এক ধরনের ছোঁয়াতে রোগ। আদতে এই কথার কোন ভিত্তি নেই। বরং এই ডেঙ্গু জ্বর কখনোই ছোঁয়াচে রোগের আওতায় পড়ে না। তবে এই ডেঙ্গু জ্বরের বিভিন্ন প্রকারের ভাইরাস রয়েছে। যেমন, চিকন গুনিয়া, বার্মা ফরেস্ট, ফ্লু ইত্যাদি। আর বর্তমান সময়ে আমাদের বাংলাদেশে যে সকল ডেঙ্গু জ্বর হয়। সেই সকল ডেঙ্গু জ্বর কে মূলত দুই ধরনের হয়ে থাকে। একটি হলো, সাধারণ ডেঙ্গু জ্বর। এবং আরেক টি হল রক্তপাত সহ ডেঙ্গু জ্বর। মূলত এই দুই প্রকার ডেঙ্গু জ্বরের মধ্যে আপনি যে কোন একটি ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হলে। আপনাকে তাৎক্ষণিক ভাবে চিকিৎসা নিতে হবে অন্যথায় আপনি নানা রকম সমস্যার সম্মুখীন হবেন।

See also  শারীরিক বিকাশ কাকে বলে | শিশুর মানসিক বিকাশে খেলার গুরুত্ব

তবে এমন বেশ কিছু উপায় রয়েছে যে উপায় গুলো কে অনুসরণ করলে আপনি ডেঙ্গু জ্বর থেকে বাঁচতে পারবেন। মূলত আমরা অনেকেই অসচেতন ভাবে থাকার কারণে এই ডেঙ্গু জ্বর আমাদের আক্রমণ করে থাকে। আর আজকের এই আলোচনার মাধ্যমে আমি আপনাকে ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয় উপায় গুলো জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করব। আপনি যদি এই উপায় গুলো কি সঠিক ভাবে অনুসরণ করতে পারেন। তাহলে আপনার ডেঙ্গু জ্বর হওয়ার সম্ভাবনা অনেক অংশে কমে যাবে। তো চলুন এবার সেই ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয় উপায় গুলো সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয় উপায়

আপনি যদি ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত না হন। সেজন্য আপনাকে বেশ কিছু ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয় উপায় অনুসরণ করতে হবে। যাতে করে আপনি এই ডেঙ্গু জ্বর থেকে বাঁচতে পারেন। আর সেই উপায় গুলো নিচে স্টেপ বাই স্টেপ উল্লেখ করা হলো। এবং আপনি অবশ্যই এই উপায় গুলো অনুসরণ করে চলার চেষ্টা করবেন।

  1. আপনার বাড়ির আশেপাশে যে জঙ্গল, ঝাঁপ, ঝোড় থাকবে। সে গুলো অবশ্যই কেটে ফেলবেন এবং পরিষ্কার রাখার চেষ্টা করবেন।
  2. আমরা অনেক সময় ঘরের ভিতরে ফুলের টপ কিংবা প্লাস্টিকের বোতল রেখে দেই। মূলত এ গুলোর মাধ্যমে মশা তাদের বংশ বিস্তার করে থাকে। তাই কখনোই এই ধরনের অপ্রয়োজনীয় বস্তু গুলো নিজের ঘরের ভিতরে রাখবেন না।
  3. মশা নিধন করার জন্য অবশ্যই আপনি সপ্তাহে অন্তত পক্ষে একবার হলেও মশা নিধন করার স্প্রে দেয়ার চেষ্টা করবেন।
  4. আপনার ঘরের কিংবা বাড়ির আশেপাশে যদি বৃষ্টির পানি জমা হয়ে থাকে। তাহলে সেই বৃষ্টির পানি পরিষ্কার করার চেষ্টা করবেন। কেননা এ গুলোর মাধ্যমে মশা বংশ বিস্তার করে থাকে।
  5. যখন আপনি বিছানায় ঘুমাতে যাবেন। তখন অবশ্যই ভালো মশারি ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন। যাতে করে ঘুমন্ত অবস্থায় মশা আপনাকে কামড় দিতে না পারে।
  6. এডিস মশা সচরাচর দিনের বেলা মানুষ কে কামড়ে থাকে। তো যখন আপনি দিনের বেলায় ঘুমাবেন। তখন অবশ্যই মশারি ব্যবহার করবেন।
  7. যদি আপনার বাড়ির আশেপাশে টায়ার, প্লাস্টিকের বোতল, ডাবের খোসা থাকে। তাহলে অবশ্যই আপনি সে গুলো পরিষ্কার করবেন। নতুবা সেখানে মশার বংশবিস্তার ঘটবে।
See also  নিম পাতার উপকারিতা ও অপকারিতা

তো মশা নিধন করার জন্য যে সকল করণীয় কাজ রয়েছে। সে গুলো উপরে উল্লেখ করা হয়েছে। এবং আপনি যদি ডেঙ্গু জ্বর থেকে বাঁচতে চান। তাহলে অবশ্যই আপনাকে এই করনীয় উপায় গুলো কে সঠিক ভাবে অনুসরণ করতে হবে। অন্যথায় আপনিও ডেঙ্গু জ্বরের মতো এই মারাত্মক রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা থাকবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button