BCS Preparation

ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা বাড়ানোর কৌশল

ইংরেজি ভাষা শেখার জন্য  নিম্মের কৌশল দেখে নিতে পারেন

ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা বাড়ানোর কৌশল

ইংরেজির গৎবাঁধা নিয়ম আর ভোকাবুলারির (শব্দভান্ডার) লম্বা ফর্দের বাংলা অর্থ মুখস্থ করেও আপনি ইংরেজিতে দুর্বল হতেই পারেন। অর্থাৎ আপনি দীর্ঘদিন ধরে ইংরেজি শেখার জন্য যে চেষ্টা করছেন, তা পণ্ডশ্রম ছাড়া কিছু নয়।

আমরা ভুলে যাই—ইংরেজি একটা ভাষা। একটি ভাষাকে এর ব্যবহারিক দিক বিবেচনা করে শিখতে হবে কিছু যৌক্তিক পদ্ধতিতে; যা সময়সাপেক্ষ ও পরিশ্রমনির্ভর; কিন্তু নিশ্চিতভাবে কার্যকর।

একটি গান যখন আমরা দিনের পর দিন শুনি, তখন স্বভাবতই এর কয়েকটি লাইন অবচেতনে আমাদের মাথায় গেঁথে যায়। গানটি বিদেশি ভাষার হলেও। ইংরেজি বা যেকোনো ভাষা শিক্ষার ব্যাপারটাও ঠিক তেমন। আপনি যত ‘শুনবেন’ (লিসেনিং), ‘পড়বেন’ (রিডিং), ‘দেখবেন’ (অবসারভেশন বা রিপিটেশন), আর চর্চা করবেন—আপনার দক্ষতা ততই বাড়বে।

শিশু কীভাবে ভাষা শেখে?

ইংরেজি কীভাবে শিখব বোঝার আগে ছেলেবেলায় আমরা নিজের ভাষাটা কীভাবে রপ্ত করেছি, সেটা একটু জেনে নেওয়া যাক।

১. তাৎক্ষণিক পর্যবেক্ষণ ও পুনরাবৃত্তি:

বড়দের বলা শব্দ নকল করা শিশুদের ভাষা শিক্ষার অন্যতম কৌশল। প্রথমে এক সিলেবলের শব্দ দিয়ে শুরু হয়। যেমন না, দে, খা ইত্যাদি। তারপর দুটি—খাবা, বাবা, যাবা। এরপর শিশুরা ছোট ছোট বাক্য রচনা করে।

ছোটদের ভাষা শেখার কৌশল (ফার্স্ট ল্যাঙ্গুয়েজ অ্যাকুইজিশন থিওরি) ব্যবহার করেও কিন্তু আমরা ইংরেজি শিখতে পারি। তবে সে ক্ষেত্রে কৌশল একটু বদলাতে হবে।

২. শ্রবণ:

শিশুরা প্রতিনিয়ত অবচেতন মনে অনেক শব্দ শোনে, যেগুলো একটু একটু করে তার মস্তিষ্কে জায়গা করে নেয়। একটা সময় পর সে মনের অজান্তেই কিছু শব্দ ও বাক্য বলতে পারে।

৩. বাস্তব জীবনের অভিজ্ঞতা:

ইংরেজি ভাষা শিক্ষার ক্ষেত্রে আমরা প্রায়ই একটি শব্দ ব্যবহার করি—Schemata, অর্থাৎ মস্তিষ্কে সংরক্ষিত আগের অভিজ্ঞতা (এটি ছোট-বড় সবার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য)। বড়দের চলাফেরা বা কোনো কিছুর ব্যবহার নিয়মিত দেখে-শুনে শিশুরা শেখে।

যেমন আপনি চেয়ারে বসছেন। বসার জন্য একটি শব্দ ব্যবহার করছেন, আবার যেখানে বসছেন, সেটির জন্য একটি শব্দ ব্যবহার করছেন। শিশু এই বিষয়গুলো খেয়াল করে। পরে তা নিজেও বলতে পারে। যেগুলো সে নিজে থেকে মনে করে বলতে পারে, সেগুলো তার স্কেমাটার অংশ

ছোটদের ভাষা শেখার কৌশল (ফার্স্ট ল্যাঙ্গুয়েজ অ্যাকুইজিশন থিওরি) ব্যবহার করেও কিন্তু আমরা ইংরেজি শিখতে পারি। তবে সে ক্ষেত্রে কৌশল একটু বদলাতে হবে।

চার কৌশল

১. প্রথমত, আপনাকে প্রচুর পড়তে ও শুনতে হবে। শুরুতে ইংরেজি গল্পের শিশু সংস্করণ (যদি মনে করেন আপনার দক্ষতা এখনো প্রাথমিক পর্যায়ের) পড়তে পারেন। ধীরে ধীরে ছোটগল্প, ইংরেজি পত্রিকা ও উপন্যাস পড়া শুরু করুন।

কার্টুন, সিনেমা, গান ইত্যাদির মাধ্যমে ইংরেজি শোনার চর্চা করুন। কতটুকু বুঝতে পারছেন, তাতে কিছু যায় আসে না। শুনে যেতে হবে, আর সঙ্গে পড়ার অভ্যাস গড়তে হবে। এতে তাৎক্ষণিক কোনো ফল আসবে না, কিন্তু মাসের পর মাস এটা করতে থাকলে আপনি নিজেই উপলব্ধি করবেন, আপনার ইংরেজি বোঝা ও বলার দক্ষতা বাড়ছে।

প্রচুর শুনলে ও বললেই আপনি ভালো লিখতে পারবেন। তবে বলার দক্ষতা অর্জনের জন্য আপনাকে কারও সঙ্গে কথা বলার চর্চা চালিয়ে যেতে হবে।

ইংরেজি বোঝেন না বলে অনেকে ইংরেজি ছবি দেখেন না। কিন্তু ইংরেজি ছবি কিন্তু আপনাকে ভাষাটা শিখতে সাহায্য করবে। একই সিনেমা দুইবার দেখুন। প্রথমে সাবটাইটেলসহ, এরপর সাবটাইটেল ছাড়া। দ্বিতীয়বার দেখার সময় সিনেমার বিষয় ও সংলাপ বুঝতে আপনার প্রথমবারের অভিজ্ঞতা কাজে আসবে।

See also  28th BCS Question with Answer

২. ইংরেজি ভাষাবিষয়ক ভালো মানের বই পড়তে পারেন। কিন্তু কোনো গতানুগতিক ব্যাকরণের বই নয়। বিজ্ঞাপনের চটকদার ভাষা, যেমন শটগান কোর্স, ম্যাজিক বুক, ২০ দিন-২১ দিনে ইংরেজি শিখুন, এসব থেকে ১০০ হাত দূরে থাকুন।

তাহলে ভালো বই চেনার উপায় কী? আপনি দেখবেন—বইটি কোন ধরনের শিক্ষার্থীদের জন্য লেখা (যেমন অনেক বইয়ে লেখা থাকে: ল্যাঙ্গুয়েজ লেভেল—বিগিনার বা ইন্টারমিডিয়েট) এতে ইংরেজির কোন বিষয়ের ওপর ধারণা দেওয়া আছে, লেখকের যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা কী ইত্যাদি।

একটি চমৎকার বই হচ্ছে এসেনশিয়াল গ্রামার ইন ইউজ বাই রেমন্ড মারফি। ইংরেজি গ্রামারের দুর্বলতা দূর করতে এই বই বেশ কাজের। পুরোটাই ইংরেজিতে লেখা। তাতে ভড়কে না গিয়ে বরং বইয়ে দেওয়া অনুশীলনগুলো করতে থাকুন।

৩. আপনার হয়তো ইংরেজি ব্যাকরণে দখল আছে, ভালো লিখতেও পারেন। কিন্তু বলতে পারেন না। এর একটাই কারণ—চর্চার অভাবের কারণে আপনি ইংরেজি বলতে সংকোচ বোধ করেন।

ইংরেজি বলার জন্য আপনাকে চর্চা করতেই হবে। এই ক্ষেত্রে একজন সঙ্গী জোগাড় করে নিতে হবে, যিনি আপনার মতোই ইংরেজি চর্চায় আগ্রহী। আপনি কথা না বলতে চাইলে কোনো অলৌকিক পদ্ধতি বা কোর্স নেই, যা আপনাকে ‘স্পিকিং’ শেখাবে।

৪. ইংরেজি পত্রিকা ও অন্যান্য বই পড়ার অভ্যাস না করলে কখনোই খুব ভালো ইংরেজি ভাষা শিখতে পারবেন না। তবে কেবল ইংরেজি পত্রিকা পড়লেও চলবে।

আপনার ভাষার দক্ষতা ভালো, মোটামুটি কথা বলতে পারেন, কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে শব্দ খুঁজে পান না। এই ক্ষেত্রে একমাত্র পত্রিকা পড়ার অভ্যাসই আপনাকে রক্ষা করতে পারে। সঙ্গে গল্পের বই পড়ার অভ্যাস গড়ে তুললে আরও ভালো।

বর্তমান পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ভাষা হচ্ছে ইংরেজি। এই জন্য ইংরেজি আন্তর্জাতিক ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করেছে। এক গবেষণায় দেখা যায় বর্তমান ইন্টারনেট তথ্যের শতকরা ৬০ ভাগ ইংরেজি ভাষায় লিখিত। সুতারাং বুঝতেই পেরেছেন ইংরেজি ভাষা কতটা গুরুত্বপূর্ণ আমাদের জন্য। ইংরেজি যেহেতু আমাদের মাতৃভাষা নয় সেহেতু এটি আয়ত্ব করতে আমাদের একটু বেশি পরিশ্রম করতে হয়।

তবে ইংরেজি যতটা কঠিন ভাবা হয় আসলে ততটা কঠিন না। নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে প্রতিদিন অনুশীলন করলে ইংরেজি আপনার জন্য অনেকটাই সহজ হয়ে যাবে। বর্তমান উচ্চ শিক্ষার একমাত্র মাধ্যম হচ্ছে ইংরেজি। চাকরীর বাজারে ইংরেজির কদরটা একটু বেশি থাকে। 

যারা সাবলীলভাবে ইংরেজিতে কথা বলতে পারে, তারাই অধিকাংশ ভালো বেতনের চাকরি পেয়ে থাকে। এছাড়া আপনি যদি বিদেশে পড়তে চান, আপনাকে অবশ্যই ইংরেজিতে বলতে, লিখতে, এবং বুঝতে পারার দক্ষতা অর্জন করতে হবে।

আজকে আমরা ইংরেজিতে সাবলীলভাবে কথা বলার কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ টেকনিক নিয়ে আলোচনা করব।

ইংরেজি ভাষা দক্ষতা অর্জনের কৌশল

ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা বাড়ানোর কৌশল
ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা বাড়ানোর কৌশল

ইংরেজি শব্দভাণ্ডার সমৃদ্ধ করা (Enrich English Vocabularies)

ইংরেজি শব্দভাণ্ডার বিশাল সাগরের মত। এতে বিচলিত হওয়ার কোন কারণ নেই। কারণ আপনি একদিনে সবকিছু আয়ত্ব করতে পারবেন না। এর জন্য দরকার সঠিক গাইড লাইন। ইংরেজি ভাষায় কথা বলার ভালো দক্ষতা অর্জন করতে হলে অবশ্যই শব্দভাণ্ডার বৃদ্ধি করা ছাড়া উপায় নেই। ইংরেজি ডিকশনারি পড়ে শব্দভাণ্ডার মনে রাখা অনেকটাই কঠিন এবং সময় সাপেক্ষ।

ইংরেজি শব্দভাণ্ডার বৃদ্ধি করতে নিচের কৌশলসমূহ অনুসরণ করতে পারেন। 

See also  আলোকশক্তি ও শব্দ ও তরঙ্গ  কি এবং কত প্রকার কি কি

প্রতিদিন সর্বনিম্ম ১৫ টি ইংরেজি একটি ডায়রিতে লিখে রাখুন এবং মুখস্ত করুন। পরেরদিন নতুন শব্দ লিখার পূর্বে আগের দিনের ১৫টি শব্দ পুনরাবৃত্তি করুন।

ইংরেজি পত্রিকা পড়ার সময় যেসব শব্দ অপরিচিত সেগুলো নোট করে পড়ুন।

ইংরেজি প্রতিটি শব্দের সমার্থক এবং বিপরীতার্থক শব্দ নিয়মিত চর্চা করুন।

নতুন শব্দ দিয়ে বাক্য তৈরি করার অনুশীলন করুন।

নোটকৃত শব্দগুলো প্রতিদিন বাহিরে কোথাও গেলে সাথে রাখুন। সময় পেলে খুলে পড়ুন।

ইংরেজি গ্রামারের মৌলিক নিয়ম জানা (Learning Basic English Grammer)

ইংরেজি ভাষায় ভালো দক্ষতা লাভ করতে হলে অবশ্যই শব্দভান্ডার বৃদ্ধির সাথে সাথে ইংরেজি গ্রামারের মৌলিক নিয়ম-কানুন জানা আবশ্যক। তবে গ্রামার দিয়ে ইংরেজি বলা কোন বাধ্যবাধকতা নেই। ইংরেজি গ্রামার ছাড়াও ইংরেজিতে কথা বলা যায়। তবে ইংরেজিতে একজন ভালো ছাত্র হতে হলে আপনাকে ইংরেজি গ্রামার শিখার বিকল্প নেই। 

যখন গ্রামার ভালোভাবে বুঝে নিবেন, তখন ইংরেজিতে কথা বলতে এবং বুঝতে অনেকটাই সহজ হয়ে যায়। আনুষ্ঠানিক কোন সভা বা মিটিংয়ে ইংরেজির ব্যাসিক গ্রামার না জানলে সেখানে বিব্রতকর পরিস্থিতির সম্মুখ হতে  হবে।

ইংরেজি শব্দের সঠিক উচ্চারণ শেখা (Learning  Correct English Pronunciation)

ইংরেজি যেহেতু আমাদের প্রধান ভাষা না, সেক্ষেত্রে ইংরেজির সঠিক উচ্চারণ অনেকটা অজানাই থেকে যায়। যদিও উচ্চারণ স্থান, কাল, এবং অঞ্চলভেদে ভিন্নতা পরিলক্ষিত হয়।

বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থায় ইংরেজি ভাষার উচ্চারণ যেটা দেওয়া থাকে সেটি আসলে আদর্শ উচ্চারণ না। প্রতিটি ভাষার একটি নিজস্ব আদর্শ উচ্চারণবিধি রয়েছে। ইংরেজি শব্দের সঠিক উচ্চারণ শিখতে বাংলা একাডেমির English to Bengali Dictionary  বইটি পড়তে পারেন। এতে প্রতিটি ইংরেজি শব্দের সঠিক উচ্চারণ দেয়া আছে।

ইংরেজিতে অনর্গল কথা বলতে বা ভালো দক্ষতা অর্জন করতে হলে, আপনাকে শব্দের মৌলিক উচ্চারণ জানতে হবে। সঠিক উচ্চারণে ব্যবহার করলে ইংরেজি শুনতে শ্রুতিমধুর লাগবে। সেইসাথে আপনার ইংরেজিতে কথা বলার আত্মবিশ্বাস বাড়াতে ভূমিকা রাখবে।

ইংরেজি পত্রিকা পড়ার অভ্যাস গড়ুন (Habit of Reading English Newspaper)

ইংরেজিতে দক্ষতা বাড়ানোর জন্য আপনাকে প্রতিদিন একটি হলেও ইংরেজি পত্রিকা পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। পত্রিকা পড়ার মাধ্যমে অনেক নতুন নতুন শব্দের সাথে পরিচিত হবেন। যেটা আপনার ইংরেজি ভাষা বুঝার ক্ষেত্রে অনেকটাই সহজ করে ‍দিবে।

প্রথম প্রথম পত্রিকার খবরের সারমর্ম বুঝতে সমস্যা হলেও পড়তে পড়তে কমে যাবে। একসময় বাংলা পত্রিকার মতন ইংরেজি পত্রিকাও সাবলীলভাবে পড়ে বুঝতে পারবেন। বর্তমান ইন্টারনেটের যুগে পত্রিকা পড়া অনেক সহজ হয়ে গেছে। 

ইংরেজি ভাষা সাবটাইটেল যুক্ত মুভি দেখা (Watch English movie with subtittle)

মুভি দেখে ইংরেজি ভাষা কথা বলার দক্ষতা অর্জন একটা কার্যকরী মাধ্যম। প্রথম দিকে বুঝতে একটু কঠিন মনে হলেও ধীরে ধীরে বুঝতে সহজ হয়ে যায়। এর মাধ্যমে ইংরেজি বাক্যের সর্টকাট ব্যবহার করার কৌশল শিখতে পারবেন।

অনেক বাংলা মুভিতেও ইংরেজি ভাষা সাবটাইটেল দেওয়া থাকে। স্থান, কাল, এবং অবস্থাভেদে কখন কোন অভিব্যক্তি প্রকাশ করতে হয় তা মূলত মুভি দেখে অতি অল্প সময়ে আয়ত্ত্ব করা যায়। আমি নিজেও প্রায় সময় ইংরেজি সাবটাইটেল যুক্ত ছবি দেখি। 

অধিকারহারে ইংরেজি বলার অভ্যাস (The habit of speaking more English)

দৈনন্দিন সকল কাজে ইংরেজি ভাষা বলার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। এটার জন্য সবচেয়ে কার্যকরী পন্থা হচ্ছে পারস্পরিক স্বাভাবিক কথাবার্তা বা মত বিনিময় ইংরেজিতে প্রকাশ করা। দু’জন মিলে বা গ্রুপ করে ইংরেজিতে নিজেদের ভাব প্রকাশ করলে একসময় ইংরেজি ভীতি দূর হয়ে যাবে। তাই সবসময় যেকোন স্থানে বা যেকোন অবস্থায় ইংরেজি বলার অভ্যাস করতে হবে।

See also  ৫০টি MCQ Question and Answer বাংলাদেশ বিষয়াবলী’ সাধারণ জ্ঞান থেকে

ইংরেজি ভাষা অনুষ্ঠান দেখা (Watch English programms on TV)

ইংরেজিতে কথা বলতে গেলে আগে অন্যের কথা বা প্রশ্ন বুঝতে হবে। প্রশ্ন না বুঝলে আপনি কি উত্তর দিবেন?। তাই অন্যের বলার ভাষা সহজে বুঝতে হলে যেকোন ইংরেজি অনুষ্ঠান দেখার বিকল্প নেই। টিভিতে ইংরেজি সংবাদ বা কোন বিদেশি টিভির আলোচনা শুনতে পারেন এক্ষেত্রে।

বিদেশি টিভির মধ্যে আল জাজিরা, বিবিসি অথবা সিএনএন এর সংবাদ শুনলে ইংরেজি শুনে বুঝতে সহায়ক হবে। নিয়মিত ইংরেজি সংবাদ এবং আলোচনা শুনলে আপনার ইংরেজির লিসেনিং দক্ষতা অর্জন হবে।

সার্বিক ভাবনায় ইংরেজিকরণ (Think everything in English)

হাঁটার সময় আপনার সামনে এমন কিছু চোখে পড়ছে যেটার ইংরেজি কি হবে তা জানেন না। তখন সেটির ইংরেজি ভাষা কি হবে তা মনে মনে চিন্তা করুন। যদি মনে না আসে অথবা জানেন না, তাহলে সেটা নোট করে রাখুন। সারাদিন আপনার আশেপাশে অন

প্রতিদিন চর্চা করুন। কতটুকু শিখলেন সেটা পরিমাপ করতে যাবেন না। একটা সময় আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন আপনার ইংরেজি ভাষা বলা ও বোঝার দক্ষতা অনেক বেড়ে গেছে, সেই সাথে খুলে গেছে অপার সম্ভাবনার দ্বার!

যে জাতির ইংরেজিতে যত দক্ষতা, তার উন্নতির সম্ভাবনা তত বেশি। বিশ্বে নিজের জায়গাটা ধরে রেখে এগিয়ে যেতে হলে ইংরেজি দক্ষতা অর্জন করতে হবে। আপনার ইংরেজি ভাষায় দক্ষতা বৃদ্ধিতে আপনাকে আপনার সাহায্য করতে হবে । আপনার পক্ষে ইংরেজি ভাষা শেখার সবচেয়ে ভালো উপায় ইংরেজি অধ্যয়ন করার পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে, কত ঘণ্টা অধ্যয়ন করবেন । ইংরেজিতে দক্ষতার জন্য প্রয়োজন শতভাগ ইংরেজির ব্যবহার ।

Englishইংরেজিতে দক্ষতা বাড়ানোর জন্য প্রথমে আপনাকে লজ্জ্বা পরিহার করতে হবে। যে বিষয়ে আপনার আগ্রহ সেই বিষয়ের ইংরেজি ভিডিও দেখুন , ইংরেজি উপন্যাস, ইংরেজি পত্রিকা, ইংরেজি গান শোনা, ইংরেজি সিনেমা, ইংরেজি সংবাদ নিয়মিত দেখুন, ইংরেজিকে পছন্দ করুন, টিভিতে ইংরেজি অনুষ্ঠান দেখুন। আপনার মতই ইংরেজি শিখতে চাচ্ছে এমন কারো সাথে সময় কাটান ইংরেজিতে কথা বলে ।

ইংরেজি শব্দ ভাণ্ডার বাড়াতে

ইংরেজিতে দক্ষতা বাড়ানোর জন্য প্রথমে আপনাকে বেশি করে শব্দ আয়ত্ত করতে হবে । শব্দ আয়ত্ত করতে পারেন নিচের ওয়েবসাইটগুলো থেকে –

myvocabulary

learnenglish

vocabulary.co

vocabulary.com

eslflex

ইংরেজি অডিও শুনে, ভিডিও ফরম্যাটে,গেম খেলার মাধ্যমে ইংরেজিতে কথা বলার চর্চা

অডিও শুনে, ভিডিও ফরম্যাটে, গেম খেলার মাধ্যমে ইংরেজিতে কথা বলার চর্চা করতে পারেন নিচের ওয়েবসাইটগুলো থেকে –

englishspeak

talkenglish

audioenglish

funeasyenglish

elllo

go4english

lang-8

focusenglish

englishcommunications

teachingenglish

yourenglishonline

বিভিন্ন শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা ইংরেজি ভাষা দক্ষতা বাড়াতে পারেন নিচের ওয়েবসাইটগুলো থেকে –

e-learningforkids

bbc.co.uk

britishcouncil

english-4kids

অনলাইনে IEALTS প্রস্তুতি

অনলাইনে IEALTS প্রস্তুতি নিতে পারেন নিচের ওয়েবসাইটগুলো থেকে –

britishcouncil

ielts-exam

ielts.studyau

cambridgeesol

cross-link

uefap

britishcouncil.org

notefull

অনলাইনে ইংরেজির ভুল গুলো ঠিক করতে পারেন নিচের ওয়েবসাইট থেকে

spellcheckplus

spellcheckonline

spellchecker

grammarcheck

grammarcheck editor/

উপরের বর্ণিত কৌশলগুলোর সঠিক প্রয়োগের মাধ্যমে আপনি খুব অল্প দিনেই ইংরেজি ভাষা শিখতে পারেবেন।

তাহলে শুরু হয়ে যাক আজ থেকেই? মনে রাখবেন, ইংরেজি শেখার ক্ষেত্রে কোন ধরনের “শর্টকাট” রাস্তা বা টেকনিক নেই। এখানে ম্যাজিক হচ্ছেন আপনি নিজে। আপনার একান্ত চেষ্টা ও চর্চা আপনাকে এই ক্ষেত্রে সফলতা এনে দিতে পারে

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button